সরিষাবাড়ীতে দুই মেয়ে সমকামীর বিয়ে নিয়ে সালিশ বৈঠক পুলিশে সোপর্দ

প্রথম পাতা » ছবি গ্যালারী » সরিষাবাড়ীতে দুই মেয়ে সমকামীর বিয়ে নিয়ে সালিশ বৈঠক পুলিশে সোপর্দ
বুধবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২



---

ইসমাইল হোসেন জামালপুর প্রতিনিধি : জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে দুই মেয়ে সমকামীর বিয়ের ঘটনাকে কেন্দ্র করে এক গ্রাম্য সালিশ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ডোয়াইল ইউনিয়নের হাটবাড়ী মধ্যপাড়া গ্রামের মোঃ দুদু মিয়ার দশম শ্রেণী পড়ুয়া মেয়ে মোছাঃ আদুরী আক্তার মীম ও পার্শ্ববর্তী টাঙ্গাইল জেলার ধনবাড়ী উপজেলার বীরতারা ইউনিয়নের পাঁচনখালী গ্রামের রয়েছ উদ্দিনের মেয়ে আরিয়ান ইসলাম আয়ান একে অপরের সাথে সমকামিতা প্রেমে জড়িয়ে পড়ে।

এ প্রেমের সম্পর্কের জের ধরে গত নয় মাস পূর্বে আরিয়ানের সাথে পালিয়ে যায় মীম। আরিয়ান জানান ,তাদের এই সম্পর্ক তিন বছরের।

আরিয়ান আরো বলেন, মীম এর বিয়ে তার খালাতো ভাইয়ের সাথে ঠিক হলে। সে বাড়ী হতে পালিয়ে আরিয়ানের সাথে চলে যায় ঢাকায়। পালানোর পর মীমকে অনেক খোঁজাখুঁজি করেছে তার পরিবার কিন্তু কোথাও তার সন্ধান পাননি তারা।

গত কয়েকদিন পূর্বে মীম তার নিজ মোবাইল দিয়ে ফোন করে তার বাড়ীতে যোগাযোগ করলে জানতে পারে তার মা অসুস্থ।

পরে সে তার মার অনুরোধে তার সমকামী বন্ধুদের সাথে নিয়ে বাড়ীতে চলে আসে। আসার পর মেয়ের কাছ থেকে জানতে পারে সে আরিয়ান নামে মেয়েটিকে বিয়ে করেছে। পরে এ বিষয়টি এলাকার মধ্যে জানাজানি হলে সমকামীদের দেখার জন্য হাজারো নারী পুরুষের সমাগম সৃষ্টি হয়।

পরে এলাকার নেতৃত্ব স্থানীয় ব্যক্তিবর্গরা চেয়ারম্যান কে সাথে নিয়ে বিষয়টি সমাধানের লক্ষ্যে এক সালিশ বৈঠকের আয়োজন করেন। উক্ত সালিশ বৈঠকে আরিয়ান ইসলাম আয়ান জানান, তারা গত ১১/১২/২০২১ ইং সালে গোপনে নোটারি পাবলিক এর মাধ্যমে বিয়ে করেছে। যার প্রমাণস্বরূপ একটি বিবাহের অঙ্গীকারনামা পেশ করেন সালিশিতে।

এমতাবস্থায় বিষয়টি সমাধান করতে না পেরে ডোয়াইল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক স্বপন সরিষাবাড়ী থানা পুলিশকে বিষয়টি অবগত করলে সরিষাবাড়ী থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে যায় এবং ঘটনার সত্যতা পায়। পরে সমকামীদের গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।

সালিশিয়ান সূত্রে জানা যায়, মীম ও আরিয়ানকে সহযোগিতা করতে তাদের আরো দুই বান্ধবী ঢাকা থেকে গ্রামের বাড়ীতে আসে। যারা এসেছে তারা হলেন পুরান ঢাকার ১১নম্বর রোডের রফিক মিয়ার মেয়ে আয়াত (১৯) ও রাফিন ইসলাম(১৯) ।

পরে তাদেরও জবানবন্দী নিয়ে দায়িত্বরত পুলিশ কর্মকর্তা এস আই আব্দুল খালেক এর কাছে সোপর্দ করা হয়েছে বলে জানা যায়।

এ বিষয়ে ডোয়াইল ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক স্বপন জানান, সমকামী বিয়ের খবর পেয়ে আমি হাটবাড়ী গ্রামে আসি।

এসে এলাকাবাসীকে সাথে নিয়ে বসি এবং কথা বলি। পরে সমবেত সকলের সম্মতিতে সরিষাবাড়ী থানা পুলিশের কাছে সমকামীদ্বয় ও তাদের সহযোগী দুই বান্ধবীকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছেন বলে জানান তিনি।

বাংলাদেশ সময়: ২২:০৮:৪০   ৩৭৫ বার পঠিত  




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)