গার্ডারচাপায় নিহত: ৫ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে রিট

প্রথম পাতা » ছবি গ্যালারী » গার্ডারচাপায় নিহত: ৫ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে রিট
বুধবার, ১৭ আগস্ট ২০২২



---

রাজধানীর উত্তরায় বাস র‌্যাপিড ট্রানজিট (বিআরটি) প্রকল্পের গার্ডারচাপায় ৫ জনের মৃত্যুর ঘটনায় প্রত্যেকের পরিবারকে ১ কোটি টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশনা চেয়ে রিট দায়ের করা হয়েছে। রিটে গত পাঁচ বছরে ফ্লাইওভারের নির্মাণ কার্যক্রম পরিচালনার জন্য বিআরটি কী ধরনের নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা নিয়েছে, তার একটি প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে।

বুধবার (১৭ আগস্ট) সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী জাকারিয়া খানের পক্ষে আইনজীবী শাহজাহান আকন্দ মাসুম রিটটি দায়ের করেন।

এছাড়া মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট) এ ঘটনায় আরেকটি রিট হয়েছে। ওই রিটে ঘটনার তদন্ত করে দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা ও জনগণের চলাফেরায় প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা চাওয়া হয়। সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট সাগুফতা আহমেদ ওই রিটটি দায়ের করেন।

স্বরাষ্ট্র সচিব, সড়ক ও জনপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ সংশ্লিষ্টদের ওই রিটে বিবাদী করা হয়েছে।

এর আগে মঙ্গলবার এ দুর্ঘটনাটি নিয়ে পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদন হাইকোর্টের নজরে আনেন আইনজীবী ব্যারিস্টার সৈয়দ মাহসিব হোসাইন, অ্যাডভোকেট জামিউল হক ফয়সাল ও অ্যাডভোকেট মো. শাহিনুজ্জামান।

তারা আদালতের কাছে সুয়োমোটো (নাগরিকের মৌলিক অধিকার রক্ষায় আদালতের স্বপ্রণোদিত) আদেশ প্রার্থনা করেন। তখন বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি খিজির হায়াতের হাইকোর্ট বেঞ্চ বলেন, আপনারা রিট আবেদন নিয়ে আসেন; আমরা শুনব।

উল্লেখ্য, সোমবার (১৫ আগস্ট) বিকেলে উত্তরার জসীম উদ্‌দীন মোড়ে আড়ংয়ের সামনে নির্মাণাধীন বাস র‌্যাপিড ট্রানজিট (বিআরটি) প্রকল্পের ফ্লাইওভারের গার্ডার পড়ে একটি প্রাইভেটকারের পাঁচ আরোহী নিহত হন। এছাড়া দুই যাত্রীকে আহত অবস্থায় হাসপাতালে নেয়া হয়।

জানা গেছে, বউভাত খেয়ে প্রাইভেটকারে নবদম্পতিকে নিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন স্বজনরা।

পথিমধ্যে উত্তরার জসীম উদ্‌দীন মোড়সংলগ্ন সড়কে বিআরটি প্রকল্পের গার্ডার পড়ে নিহত হন ৫ জন। প্রাইভেটকারে ৭ আরোহীর মধ্যে শুধু বেঁচে যান বর হৃদয় (২৬) ও নববধূ রিয়া মনি (২১)। শনিবার (১৩ আগস্ট) বিয়ে হয় তাদের।

প্রাইভেটকারে আরোহীদের মধ্যে বর-বধূ ছাড়াও ছিলেন হৃদয়ের বাবা রুবেল (৬০), হৃদয়ের শাশুড়ি ফাহিমা (৪০), রিয়া মনির খালা ঝরনা (২৮), ঝরনার দুই সন্তান জান্নাত (৬) ও জাকারিয়া (২)। ঘটনাস্থলেই পাঁচজনের মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় নিহত ফাহিমা আক্তার ও ঝরনা আক্তারের ভাই মো. আফরান মণ্ডল বাবু বাদী হয়ে উত্তরা পশ্চিম থানায় মামলা করেছেন। মামলার বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেন উত্তরা পশ্চিম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মোহসীন।

মামলায় ক্রেনের চালক, প্রকল্পের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না গেজহুবা গ্রুপ করপোরেশন (সিজিজিসি) ও নিরাপত্তা নিশ্চিতে দায়িত্বপ্রাপ্তদের অভিযুক্ত করা হয়েছে। ব্যক্তি হিসেবে আসামি করা হয়েছে অজ্ঞাতদের।

বাংলাদেশ সময়: ১২:০৩:৪০   ২৪ বার পঠিত  




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

ছবি গ্যালারী’র আরও খবর


ভারতে সড়ক দুর্ঘটনায় ২৭ জন নিহত
৩ অক্টোবর সোমবার বিশ্ব শিশু দিবস ও শিশু অধিকার সপ্তাহ ২০২২ এর বিস্তারিত কর্মসূচি
জেলা পরিষদ নির্বাচনে পক্ষপাতিত্ব করছে উপজেলা আওয়ামীলীগ- অভিযোগ প্রার্থীদের
চীনের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে শুভেচ্ছা জানিয়ে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর চিঠি
মেহেরপুর-কুষ্টিয়া সড়কে বাস চলাচল বন্ধ, ভোগান্তিতে যাত্রীরা
আজ দ্বিতীয় দফা সংলাপে বসবে বিএনপি
চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা বাড়ানোর দাবিতে বিক্ষোভ, পুলিশের বাধা
রাজধানীতে মাদক বিক্রি-সেবনের অভিযোগে আটক ৪৩
ঢাকার রাস্তায় পথচারীদের কি কোনো অধিকার আছে?
আজ মহাসপ্তমী

আর্কাইভ