গণপরিবহন চললেও স্বাস্থ্যবিধি কিছুটা উপেক্ষিত

প্রথম পাতা » ছবি গ্যালারী » গণপরিবহন চললেও স্বাস্থ্যবিধি কিছুটা উপেক্ষিত
শুক্রবার, ৭ মে ২০২১



---

অর্ধেক যাত্রী আর বর্ধিত ভাড়া নিয়ে সরকার ঘোষিত বিধি-নিষেধের মধ্যে ২২ দিন পর রাজধানীর সড়কে চলতে শুরু করেছে গণপরিবহন।

বৃহস্পতিবার (৬ মে) ভোর থেকে গণপরিবহন চলাচল শুরু হলেও বেশিরভাগ পরিবহন শ্রমিক এবং যাত্রীদের স্বাস্থ্যবিধি অনেকটা উপেক্ষায় করতে দেখা গেছে।

অনেক যাত্রী অভিযোগ করেছেন গণপরিবহন চলাচল শুরু হলেও যাত্রী ও গাড়ির সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না। এতে করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। তবে বাস চলাচল শুরু হওয়ায় যাত্রীরা অল্প খরচে গন্তব্যে যেতে পেরে খুশি।

দুপুরে কারওয়ান বাজার এলাকায় হাবিব রহমান নামে এক যাত্রী বলেন, গণপরিবহন চালু করায় আমরাদের মতো সাধারণ মানুষের একটু সুবিধা হয়েছে। এখন কম খরচেই যাতায়াত করা যাচ্ছে। তবে অনেকেই দেখলাম স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না। এক আসন ফাঁকা রাখার কথা থাকলেও গাদাগাদি করে যাত্রীরা গন্তব্যে যাচ্ছেন। কারো মুখে মাস্ক আছে, কারো নেই। এভাবে চলতে থাকলে করোনা সংক্রমণ বাড়তে পারে।

দুপুরে কারওয়ান বাজার ঘুরে দেখা যায়, যাত্রীরা ঠেলাঠেলি করে উঠছেন বাসে। অনেক সময় কোনও সিট খালি রাখা হচ্ছে না। দাঁড়িয়েও যাচ্ছে লোকজন। কারও কারও মুখে নেই মাস্ক। সকালের দিকে বাসগুলো কিছুটা ফাঁকা থাকলেও বেলা বাড়ার পর রাজধানীর বিভিন্ন রুটের বাসগুলোতে একই অবস্থা দেখা গেছে।

এছাড়া, ডাবল সিটে নেওয়া হচ্ছে যাত্রী। বেশিরভাগ বাসে যাত্রী ওঠানোর সময় চোখে পড়েনি কোনও জীবাণুনাশক স্প্রে’র। তবে দুই একটি বাসে স্প্রে ছিটিয়ে যাত্রীদের বাসে ওঠানো হচ্ছে। এছাড়া বেশ কয়েকটি গাড়িতে সিট ভর্তি করে ওঠানো হয়েছে যাত্রী। এসব তদারকিরও যেন কেউ নেই।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে শেকড় পরিবহনের চালক বলেন, এতক্ষণ মাস্ক পরেছিলাম। মাত্র একটু নাক থেকে নামিয়েছি। শ্বাস নিতে একটু সমস্যা হচ্ছিল তাই। আর সকালে বাস রাস্তায় নিয়ে নামার আগে পুরো বাসের সিটে জীবাণুনাশক স্প্রে করেছি। পাশাপাশি দুই সিটের একটিতে যাত্রী নিয়ে অন্যটি ফাঁকা রেখে বাস চালানো হচ্ছে। কেউ দাঁড়িয়ে যাচ্ছেন না। যাত্রীদের মাস্ক না থাকলে বাসে যাতায়াত করতে দিচ্ছি না।

এদিকে স্বাস্থ্যবিধি না মানার ক্ষেত্রে পরিবহন শ্রমিকদের জন্য এখনো কোনো কঠোর ব্যবস্থা নেননি আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় দায়িত্বপ্রাপ্তরা। বরং প্রাথমিক অবস্থায় তারা সকলকে সচেতন করার জন্যই কাজ করছেন বলে জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে রাজধানীর কারওয়ান বাজার এলাকায় দায়িত্বরত ট্রাফিক ইন্সপেক্টর বিপ্লব ভৌমিক বলেন, দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর আজ গণপরিবহন খুলে দেওয়ায় সড়কে গাড়ির চাপ বেশ কিছুটা বেড়েছে। মানুষ দীর্ঘদিন ঘরে ছিল এবং সামনে যেহেতু ঈদ, তাই অনেকেই বেরুচ্ছেন।

তিনি বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মানার জন্য আমরা যাত্রী এবং পরিবহন সংশ্লিষ্ট সকলকেই সচেতন করছি। যাদের মাস্ক নেই, তাদের মাস্ক দিচ্ছি। তবে এখনো কোনো কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। আমরা তাদের এখন সচেতন করার চেষ্টা করছি। যদি তারা সচেতন না হন, তবে হয়তো আইনী দিকটি নিয়েই ভাবতে হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১:১৩:৪৩   ৪৬ বার পঠিত  




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

ছবি গ্যালারী’র আরও খবর


মানবিক মূল্যবোধসম্পন্ন সুনাগরিক তৈরিতে মন্দিরভিত্তিক শিক্ষা কার্যক্রম ভূমিকা রাখছে - ধর্ম প্রতিমন্ত্রী
ফতুল্লায় ইজিবাইক চালককে খুনের ঘটনায় স্ত্রীর মামলা
সদর উপজেলাকে হারিয়ে সিটি কর্পোরেশন চ্যাম্পিয়ন
রূপগঞ্জে চোরাই জ্বালানী তেলসহ গ্রেফতার ২, পিকআপ জব্দ
ভূমির অবক্ষয় শূন্যের কোঠায় নামিয়ে আনতে কাজ করছে সরকার - পরিবেশমন্ত্রী
টেকসই উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে উদ্যোক্তাদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে হবে - স্বপন ভট্টাচার্য্য
দ্রুত গতিতে চাহিদা মোতাবেক গ্রাহক সেবা বৃদ্ধি করুন - বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী
ঝুঁকিপূর্ণ ভবনসমূহ রেট্রোফিটিংসের মাধ্যমে ভূমিকম্প সহনীয় করার লক্ষ্যে কার্যক্রম চলমান - ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী
বঙ্গবন্ধুর রচিত বই জাতির জন্য ঐতিহাসিক দলিল - পর্যটন প্রতিমন্ত্রী
করোনায় মারা গেছেন ৬৩ ও নতুন আক্রান্ত ৩,৮৪০ জন

আর্কাইভ